ই-পেপার

হিজলায় প্রথম স্ত্রীকে ঘরছাড়া করতে স্বামী-শ্বশুরের লুটপাট

নিজস্ব প্রতিবেদক | আপডেট: August 14, 2022

বরিশালের হিজলা উপজেলায় স্বামী পরিত্যাক্তা এক অসহায় নারীকে ঘরছাড়া করতে তার বসতঘরে ভাঙচুর এবং লুটপাটের অভিযোগ উঠেছে। গত শনিবার সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত উপজেলার বড়জালিয়া ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ডে এ ঘটনা ঘটে।

এই ঘটনায় গৃহবধূর স্বামী এবং শ্বশুরকে আটক গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তাছাড়া গৃহবধূ বাদী হয়ে হিজলা থানায় বাড়িঘর ভাঙচুর এবং লুটপাটের অভিযোগে মামলা দায়ের করেছেন।

ভুক্তভোগী নারী সনিয়া জানান, গত ৩ বছর পূর্বে বড়জালিয়া ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা সিকিম আলীর ছেলে তাইজুল ফকিরের সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন তারা। তাদের দাম্পত্ত জীবনে তিনটি সন্তানও রয়েছে। এর পরেও অন্য এক মেয়েকে বিয়ে করেন স্বামী তাইজুল।

সনিয়া বলেন, ‘দ্বিতীয় বিয়ের পরে আমি স্বামীর বিরুদ্ধে আদালতে একটি মামলা করেছি। আদালত আমাকে শিশু সন্তানসহ ঘরে থাকার আদেশ দেন। কিন্তু গত তিনদিন পূর্বে নতুন স্ত্রীকে নিয়ে ঘরে আসে স্বামী তাইজুল। এর প্রতিবাদ করলে স্বামী, শ্বশুর, দেবরসহ সবাই মিলে আমাকে মারপিট করে।

এতে আমি অসুস্থ হয়ে পড়লে হাসপাতালে ভর্তি হই। সেই সুযোগে আমার স্বামী, শ্বশুর সবাই মিলে আমার বসতঘরে হামলা, ভাঙচুর এবং লুটপাট করে। আমার ঘরে থাকা নগদ অর্থ, স্বর্ণালংকার এবং আসবাবপত্রসহ ঘর প্রয়োজনীয় মালামাল লুট করে।

সরেজমিনে দেখা গেছে, ‘ওই ঘরের চারটি দেয়াল বাদে সব কিছু নিয়ে গেছে অভিযুক্তরা। ভুক্তভোগী সনিয়া ৩টি সন্তান নিয়ে ভাঙাচোড়া শূণ্য ঘরে দাঁড়িয়ে আত্মচিৎকার করছে।

গৃহবধূর শাশুরী জানান, তার ছেলের বউ সনিয়া প্রতিদিন তাদের সাথে খারাব আচারন করে। তাই ছেলে অন্য মেয়েকে বিবাহ করেছে। এই ঘর তার স্বামী করেছে তাই তারা ভেঙে মালামাল নিয়ে গেছে।

হিজলা থানার অফিসার ইনচার্জ মো. ইউনুস মিয়া বলেন, খবর পেয়ে আমি নিজেই তৎক্ষণিক ঘটনাস্থলে গিয়েছিলাম। এ ঘটনায় সনিয়া বেগম বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করেছেন। ওই মামলায় সনিয়ার স্বামী তাইজুল ইসলাম ও শ্বশুর সিকিম আলী ফকির আটক করে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন