ই-পেপার

সম্মেলন স্থগিতের প্রতিবাদে নেতাদের অবরুদ্ধ করে ছাত্র সমাজের বিক্ষোভ

নিজস্ব প্রতিবেদক | আপডেট: September 4, 2022

আগামী ১০ সেপ্টেম্বর জাতীয় পার্টির অঙ্গ সংগঠন জাতীয় ছাত্র সমাজের বরিশাল জেলা ও মহানগরের সম্মেলন স্থগিত করেছে কেন্দ্র। অনিবার্য কারণবসত রোববার কেন্দ্র থেকে এমন ঘোষণা করা হয়। কেন্দ্রের এমন সিধান্তের প্রতিবাদে বিক্ষুব্ধ হয়েছে বরিশাল জেলা ও মহানগর ছাত্র সমাজের নেতাকর্মীরা।

সম্মেলন স্থগিত করার প্রতিবাদে রোববার রাতে তারা নগরীর সদররোডে শাহজাহান চৌধুরীর বাড়িতে জাতীয় পার্টি কার্যালয় ঘেরাও করে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন তারা। এসময় বরিশাল জেলা ও মহানগর জাতীয় পার্টির সিনিয়র নেতৃবৃন্দ তাদের শান্ত করতে গেলে বিক্ষুব্ধ ছাত্র নেতারা অবরুদ্ধ করে রাখেন তাদের।

আগামী ১০ সেপ্টেম্বর নির্ধারিত তারিখেই সম্মেলন করার দাবি জানান ছাত্র সমাজ নেতাকর্মীরা। অন্যথায় আন্দোলন চালিয়ে যাবার ঘোষণা দিয়েছেন তারা।

জাতীয় ছাত্র সমাজ বরিশাল মহানগর কমিটির আহবায়ক হাওলাদার মো. জাহিদ বলেন, ৬ মাস পূর্বে বরিশালে জাতীয় ছাত্র সমাজের ৬১ সদস্য বিশিষ্ট আহবায়ক কমিটি ঘোষণা করে কেন্দ্র। কেন্দ্রীয় সভাপতি ইব্রাহীম জুয়েল স্বাক্ষরিত আহ্বায়ক কমিটি আগামী ১০ সেপ্টেম্বর সম্মেলনের আয়োজন করে। এরি মধ্যে সম্মেলনের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। এই সম্মেলনের মাধ্যমে জাতীয় ছাত্র সমাজের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা হওয়ার কথা ছিল।

তিনি বলেন, ‘সম্মেলনের মাত্র ছয় দিন আগে নতুন কমিটি এবং সম্মেলন বানচাল করতে একটি চক্র ষড়যন্ত্রমূলকভাবে সম্মেলন স্থগিত করেছে। আমরা সম্মেলন চাই। সম্মেলনের মধ্য দিয়ে নতুন এবং যোগ্য নেতৃত্ব উঠে আসবে। দলকে এগিয়ে নিতে ভূমিকা রাখবে। তাই এখন আমাদের একটাই দাবি নির্ধারিত সময়ে সম্মেলন হোক।

বিক্ষোভকালে সংগঠনের যুগ্ম আহ্বায়ক আল আমিন, বরিশাল কলেজের আহবায়ক শিফাত হোসেন, ৫ নম্বর ওয়ার্ড কমিটির সভাপতি অনিক, ৬ নম্বর ওয়ার্ডের সভাপতি তানভীর, সাধারণ সম্পাদক শাকিলসহ জেলা, মহানগর, কলেজ এবং ওয়ার্ড পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

এবিষয়ে জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম মহাসচিব ও বরিশাল মহানগরের সদস্য সচিব ইঞ্জিনিয়ার ইকবাল হোসেন তাপস বলেন, ‘আগামী ১০ সেপ্টেম্বর জাতীয় ছাত্র সমাজের সম্মেলন হওয়ার কথা ছিল। এজন্য ছাত্র নেতারা সবধরনের আয়োজনও করেছে। কিন্তু অনিবার্য কারণবসত কেন্দ্র থেকে সম্মেলন স্থগিতের ঘোষণা দিয়েছে। এজন্য ছাত্র নেতারা দলীয় কার্যালয়ের সামনে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ এবং দলীয় নেতৃবৃন্দকে অবরুদ্ধ করে। তিনি বলেন, ‘বিষয়টি নিয়ে আমরা কেন্দ্রে যোগাযোগের চেষ্টা করছি। যাতে নির্ধারিত সময়ে অথবা যত দ্রুত সম্ভব সম্মেলনের তারিখ ঘোষণার জন্য।

এবিষয়ে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানের উপদেষ্টা ও বরিশাল মহানগর জাতীয় পার্টির আহ্বায়ক অধ্যাপক মহসিন উল ইসলাম হাবুল বলেন, ‘ছাত্র সমাজের সম্মেলন স্থগিত করায় আমিসহ দলের সিনিয়র নেতৃবৃন্দদের দলীয় কার্যালয়ে অবরুদ্ধ করে রেখেছে। তারা বলছে ১০ তারিখের সম্মেলনের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। তাই ১০ তারিখেই সম্মেলন করতে হবে। আমি কেন্দ্রর সাথে যোগাযোগ করছি।

তিনি বলেন, ছাত্রদের বিক্ষোবের কথা শুনে তাদের শান্ত করতে এলে তারা আমি সহ মহানগর জাতীয় পার্টির যুগ্ম আহবায়ক রফিকুল ইসলাম গফুর, জেলার সদস্য সচিব এ্যাডভোকেট এম এ জলিল, মহানগরের যুগ্ম আহবায়ক কামরুজ্জামান চৌধুরী, যুগ্ম আহবায়ক আক্তার রায়হান শপ্রুকে অবরুদ্ধ করে রাখে।

হাবুল বলেন, ‘কেন্দ্রের অনুমতি নিয়েই ১০ তারিখে সম্মেলনের আয়োজন করা হয়েছি। কিন্তু রোববার জাতীয় ছাত্র সমাজের কেন্দ্রীয় সভাপতি জুয়েল ও সাধারণ সম্পাদক আল মাসুম ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে বরিশালের সম্মেলন স্থগিত ঘোষণা করেন। আমরা অফিসিয়াল কোন কাগজপত্র এখনো পাইনি।

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন