ই-পেপার

সবাই টাকা উপার্জন করে ট্যাক্স কতজন দেয়, প্রশ্ন প্রধানমন্ত্রীর

বিএসএল নিউজ ডেস্ক: | আপডেট: November 17, 2021

মানুষের মধ্যে ট্যাক্স ফাঁকি দেওয়ার প্রবণতা সম্পর্কে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, দেশে আমাদের চাল, ডাল, বাড়ি-গাড়ি সবই আছে। তারপরও ট্যাক্স ফাঁকি দেওয়ার দিকে নজর এবং এটাই বাস্তবতা। সরকারের টাকা আসবে কোথায় থেকে। এখন বিদ্যুৎ সবার ঘরে ঘরে। এখানেও ভর্তুকি দিতে হচ্ছে। কিন্তু উৎপাদন খরচ তুলতে পারছি না।

তিনি বলেন, সবাই টাকা উপার্জন করে ট্যাক্স কতজন দেয়?

বুধবার (১৭ নভেম্বর) বিকেলে প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে যুক্তরাজ্যে অনুষ্ঠিত ২৬তম বিশ্ব জলবায়ু শীর্ষ সম্মেলন (কপ-২৬) ও ফ্রান্স সফর নিয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী এ সব কথা বলেন।

সংবাদ সম্মেলনে শেখ হাসিনা বলেন, জিনিসপত্রের দাম যাতে নিয়ন্ত্রণে থাকে, সে ব্যবস্থা আমরা নিয়েছি। উৎপাদন বাড়ানোর সব ব্যবস্থা নিয়েছি। বিশ্ববাজারে তেলের দাম বেড়েছে। আমাদের তেল কিনে আনতে হয়।

সম্প্রতি ডিজেল ও কেরোসিন তেলের দাম বৃদ্ধি প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী উপস্থিত সাংবাদিকদের উদ্দেশে বলেন, আপনারা জানেন কত টাকা ডিজেলে ভর্তুকি দিতে হয়? ২৩ হাজার কোটি টাকা ডিজেলে ভর্তুকি দিতে হয়। বিদ্যুৎসহ সব মিলিয়ে ৫৩ হাজার কোটি টাকা ভর্তুকি দিয়ে থাকি। কৃষকদের জন্য সারের দাম আমারা কমিয়েছি। যে সার ৯০ টাকা ছিল তা কমিয়ে ১৫-১৬ টাকা করেছি। কৃষিতে প্রতিটি ক্ষেতে সহায়তা দিয়েছি। কার্ড করে দিয়েছি। এখন কৃষক ১০ টাকায় অ্যাকাউন্ট খুলতে পারে। যার মাধ্যমে ভর্তুকির টাকা সরাসরি তাদের কাছে যায়।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমাদের প্রাকৃতিক সম্পদ আর কী আছে বলেন? গ্যাসে দেশ নাকি ভাসে। তাই গ্যাস বিক্রি করতে হবে। আমি সেটা করতে চাইনি। গ্যাস বিক্রিতে রাজি হইনি বলে সেবার ক্ষমতায় আসতে পারিনি। আপনারা ভর্তুকির কথা বলছেন। তাহলে বাজেটের সব টাকা ভর্তুকিতেই দিয়ে দেই? এরপরে দেশের কিন্তু আর উন্নতি হবে না। কারণ উন্নয়নের সব টাকা চলে যাবে ভর্তুকিতে।

তিনি আরও বলেন, আমার সাথে আলোচনা করেই দাম যৌক্তিক পর্যায়ে নেওয়া হয়েছে। করোনা মহামারির পরে বিশ্বের অনেক দেশে খাদ্য নিয়ে হাহাকার রয়েছে, আমাদের দেশে কিন্তু তেমনটা হয়নি।

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন