ই-পেপার

বেড়াতে আসা কিশোরীকে দলবেধে ধর্ষণ

নিজস্ব প্রতিবেদক | আপডেট: August 31, 2022

ঝালকাঠির নলছিটিতে এক কিশোরীকে (১৬) সংঘবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনায় চারজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার (৩০ আগস্ট) রাতে উপজেলার দপদপিয়া ইউনিয়নের শেখরকাঠি গ্রামে অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

বুধবার (৩১ আগস্ট) দুপুরে নলছিটি থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আতাউর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন- মোজাম্মেল সিকদার রাঙ্গা, আরিফ হোসেন, শাহিদা বেগম ও আছমা বেগম। পুলিশ জানায়, নলছিটি উপজেলার দপদপিয়া ইউনিয়নের শেখরকাঠি গ্রামের লিটন হাওলাদারের স্ত্রী শাহিদা বেগম ঢাকার কেরানিগঞ্জ চৌধুরীপাড়া এলাকার বাসাভাড়া করে থাকতেন। তাদের পাশের বাসায় বসবাস করতো এক কিশোরী। প্রতিবেশী হওয়ায় সুবাদে তাদের মধ্যে ভালো সম্পর্ক গড়ে ওঠে।

এরপর গত সোমবার (২৯ আগস্ট) শাহিদার সঙ্গে ওই কিশোরী নলছিটির দপদপিয়া ইউনিয়নে তাদের গ্রামের বাড়িতে বেড়াতে আসে। ওইদিন বিকেলে শাহিদার বাসায় পোনামাছ ব্যবসায়ী মোজাম্মেল সিকদার রাঙ্গা, আরিফ হোসেন ও রাসেল হাওলাদার কিশোরীকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করেন।

আর শাহিদা বেগম ও আছমা বেগম নামে দুই নারী এ ঘটনায় সহযোগিতা করেন। পরে গণধর্ষণে কিশোরী গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়লেও তাকে কোনো চিকিৎসা না দিয়ে উল্টো এ ঘটনা কাউকে না বলার জন্য চাপ দেওয়া হয়। নির্যাতিত ওই কিশোরী কৌশলে ঘর থেকে বের হয়ে মঙ্গলবার দুপুরে স্থানীয় কয়েকজন বাসিন্দাকে বিষয়টি জানালে তারা পুলিশে খবর দেন।

পুলিশ গিয়ে মেয়েটিকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত ওই কিশোরী পাঁচজনের নামে মামলা করেছে। তাদের মধ্যে রাতেই অভিযান চালিয়ে চারজনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। তবে আসামি রাসেল হাওলাদার পলাতক রয়েছেন।

নলছিটি থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আতাউর রহমান বলেন, কিশোরীকে চিকিৎসার জন্য ঝালকাঠি সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এছাড়া গ্রেফতারদের বুধবার সকালে আদালতে পাঠানো হয়েছে এবং পলাতক আসামিকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন