ই-পেপার

বরিশালে স্কুলের অফিস কক্ষে চুরি, মামলা দায়ের

নিজস্ব প্রতিবেদক | আপডেট: December 2, 2021

বরিশাল সদর উপজেলার চন্দ্রমোহন ইউনিয়নের টুমচর ‘আলহাজ্ব আবদুল মজিদ খান মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে’ চুরি সংঘটিত হয়েছে। চোর চক্র ওই বিদ্যালয়ের আলমিরা ভেঙে নগদ অর্থ এবং মূল্যবান কাগজপত্র নিয়ে গেছে। মঙ্গলবার দিবাগত রাতে এই চুরির ঘটনা ঘটে।

স্কুল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, ‘স্কুলের প্রধান ফটকের তালা ভেঙে ভেতরে প্রবেশ করে চোর। এরপর অফিস কক্ষের ভেতরে দুটি আলমিরা ভেঙে গুরুত্বপূর্ণ কাগজপত্র ও অফিসিয়ার ফাইলপত্র তছনছ করে ফেলে। তাছাড়া টেবিলের প্রতিটি ড্রয়ারের তালা ভেঙে কাগজপত্র বাহিরে ফেলে রাখে।

বিদ্যালয়ের শিক্ষক অমল বিশ্বাস বলেন, ‘সকালে স্কুলের বাথরুমে যাওয়ার পথে লাইব্রেরির তালা ভাঙা দেখতে পাই। পরে লাইব্রেরির দরজা খুলে সবকিছু তছনছ করা দেখতে পেয়ে অপর শিক্ষক হাসান আহমেদকে অবহিত করি। তাৎক্ষনিকভাবে বিষয়টি আমরা ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও প্রধান শিক্ষকসহ অন্যান্যদের জানানোর পাশাপাশি ৯৯৯ নম্বরে ফোন করলে পুলিশ এসে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এসএম গোলাম মোস্তফা বলেন, ‘আমাকে সকাল সাড়ে ৭টার দিকে সহকারী শিক্ষক হাসান আহমেদ মোবাইল ফোনে চুরির বিষয়টি জানান। আমি তাৎক্ষনিক স্কুলে গিয়ে দেখতে পাই অফিস কক্ষে থাকা আমার নিজের টেবিলের ড্রয়ারের তালা ভাঙা। দুটি স্টীলের আলমিরা, শিক্ষকদের ব্যবহারের একটি কেবিনেটের ১২টি ড্রয়ারের ৯টির তালা ভাঙা।

তিনি বলেন, ফাইল কেবিনের একটি ড্রয়ারে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে বেতন ও পরীক্ষার ফি বাবদ আদায়কৃত এক লক্ষ ৪৯ হাজার ৫০০ টাকা এবং বিদ্যালয়ের খন্ডকালিন অফিস সহকারী জাকির হোসেনের টেবিলের ড্রয়ার থেকে তার ব্যক্তিগত ৩০ হাজার টাকা চুরি করে নিয়েছে চোর। এছাড়া আলমিরাতে রাখা প্রধান শিক্ষক ও অফিস সহকারীর ফাইল খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না।

এদিকে, স্থানীয়রা জানিয়েছেন, একই রাতে বিদ্যালয়ের উত্তর পার্শ্বের জহির স্টোর থেকে প্রায় তিন হাজার টাকা এবং সাড়ে সাত প্যাকেট সিগারে ও কোমল পানীয় চুরি হয়।

এদিকে, খবর পেয়ে বন্দর থানার এসআই নাইম ও এসআই শহীদুল ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। এসআই নাইম বলেন, ‘চুরির ঘটনায় বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এসএম গোলাম মোস্তফা বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা আসামি করে বন্দর থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। বিষয়টি গুরুত্বের সাথে তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

বন্দর থানার অফিসার ইনচার্জ আসাদুজ্জামান বলেন, ‘বিদ্যালয় এবং দোকানে চুরির ঘটনা একই সময় হয়েছে বলে ধারনা করা হচ্ছে। তদন্ত সাপেক্ষে এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন