ই-পেপার

বরিশালে মাদক কারবারিরা কুপিয়েছে যুবককে

নিজস্ব প্রতিবেদক | আপডেট: January 2, 2022

বরিশাল নগরীর পলাশপুর কাজীর গোরস্থান এলাকায় মাদক কারবারিতে বাধা দেয়ায় মোঃ রাসেল হাওলাদার (২৮) নামে এক যুবককে কুপিয়ে মারাত্মকভাবে জখম করেছে স্থানীয় মাদক কারবারিরা। রোববার (২রা জানুয়ারি) বরিবার সকাল সাড়ে ১১টায় এ ঘটনা ঘটে। ‍আহত যুবক পলাশপুর কাজীর গোরস্থান এলাকার ৫ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা নুরু হাওলাদারের ছেলে রাসেল হাওলাদার বর্তমানে শেবাচিম হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছে।

আহত রাসেল এর ভাই রানা হাওলাদার জানান, ‘দীর্ঘ দিন ধরে মাছের পেটে ‍ইয়াবা ঢুকিয়ে বিশেষ কায়দায় মাদক বিক্রি করে আসছিল পলাশপুর হাউজিং মাঠের সোহাগ হাওলাদার এর ভাড়াটিয়া হাকিম হাওলাদারের পুত্র পঞ্চ সুমন (৪০), পলাশপুর ৪ নম্বর গুচ্ছ গ্রামের বাচ্চুর ছেলে সুরুজ (২২) ও ৭ নম্বর গুচ্ছ গ্রামের মিলন (২২) ‍এবং কাজীর গোরস্থান এলাকায় খোকন মোল্লার ছেলে বসির মোল্লা (২২) সহ তাদের সহযোগিরা।

ঘটনার ‍আগের রাতে কীর্তনখোলা নদীতে বিষ প্রয়োগ করে বিভিন্ন প্রজাতির মাছ নিধন করে। সেই মাছের পেটে ‍ইয়াবা ঢুকিয়ে তা বিক্রির জন্য পলাশপুর কাজীর গোরস্থান ‍এলাকায় নিয়ে যান। রাত তিনটার দিকে মাছ নিয়ে পঞ্চ সুমন, সুরুজ ও মিলনকে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখেন রাসেল। ‍এসময় তাদের পরিচয় ‍এবং গভির রাতে মাছে নিয়ে দাঁড়িয়ে থাকার কারণ জানতে চান তিনি।

এ নিয়ে মাদক কারবারি ‍এবং রাসেলের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। ‍এক পর্যায় মাদক কারবারিরা রাসেলের ওপর লোহার রড নিয়ে হামলা করে। তখন প্রাণে বাঁচতে রাসেল চোর চোর বলে চিৎকার করলে প্রতিবেশীরা শুনতে পেরে ‍এগিয়ে ‍আসলে মাদক কারবারিরা পালিয়ে যায়।

রানা অভিযোগ করেন, রোববার সকাল সাড়ে ১১টার দিকে ‍আল ‍আমিনের চায়ের দোকানে বসে চা পান করছিলেন রাসেল। ঠিক সেই মুহুর্তে সুমন ও তার সহযোগিরা ধরালো অস্ত্র নিয়ে রাসেলের ওপর হামলা ‍এবং কুপিয়ে জখম করে পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা রাসেলকে ‍উদ্ধার করে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে ভর্তি করে দেন।

এ প্রসঙ্গে মহানগরীর কাউনিয়া থানার অফিসার ‍ইনচার্জ (ওসি) ‍আব্দুর রহমান মুকুল বলেন, ‘পলাশপুরে ‍এ ধরনের কোন হামলা বা মারামারির ঘটনা সম্পর্কে ‍আমি অবগত নই। কেউ অভিযোগ নিয়েও ‍আসেনি। তবে অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে ‍আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানান তিনি।

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন