ই-পেপার

বন্দরে স্বাভাবিক হচ্ছে পণ্য ও কনটেইনারবাহী গাড়ি চলাচল

বিএসএল নিউজ ডেস্ক | আপডেট: November 9, 2021

জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধিকে ঘিরে পণ্যবাহী গাড়ির ধর্মঘট স্থগিত করায় আমদানি পণ্যের ডেলিভারিসহ চট্টগ্রাম বন্দরের কর্মযজ্ঞ ক্রমে স্বাভাবিক হচ্ছে। মঙ্গলবার (৯ নভেম্বর) সকাল আটটা থেকে পুরোদমে শুরু হয়েছে আমদানি পণ্যবোঝাই করা ট্রাক, কাভার্ডভ্যান ও কনটেইনারবাহী লরির চলাচল।

বন্দরের নিরাপত্তা বিভাগের একজন কর্মকর্তা বলেন, পণ্যবাহী গাড়ির ধর্মঘটের মধ্যেও বন্দর থেকে আমদানি পণ্যের ডেলিভারি ও ডিপোতে কনটেইনার আনা-নেওয়া ছিল। অনেক ট্রাক, কাভার্ডভ্যান ডেলিভারি পণ্য বোঝাই করে অপেক্ষায় ছিল ধর্মঘট প্রত্যাহারের ঘোষণার। মঙ্গলবার (৯ নভেম্বর) সকাল ৮টা থেকে পুরোদমে ডেলিভারি ও কনটেইনার পরিবহন শুরু হয়েছে।

বন্দর সচিব মো. ওমর ফারুক বলেন, ধর্মঘটের মধ্যেও বিশেষ ব্যবস্থায় বন্দরের ডেলিভারি ও কনটেইনার পরিবহন হয়েছে। ধর্মঘট প্রত্যাহারের আনুষ্ঠানিক ঘোষণার পর পুরোদমে ডেলিভারি চলছে।

সূত্র জানায়, জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে পরিবহন ধর্মঘটের প্রথম দিন শুক্রবার বন্দরে ডেলিভারি ও ডিপো থেকে কনটেইনার আনা-নেওয়া অনেকটা স্বাভাবিক থাকলেও শনিবার থেকে সোমবার বিঘ্ন ঘটে। রফতানি পণ্যের কনটেইনার যথাসময়ে বন্দরে না আসায় বেশ কয়েকটি জাহাজ ধারণক্ষমতা ও পরিকল্পনার চেয়ে কম কনটেইনার নিয়ে বন্দর ছাড়তে বাধ্য হয়েছে।

সোমবার (৮ নভেম্বর) রাতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে বৈঠক শেষে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল পণ্যবাহী গাড়ির ধর্মঘট স্থগিতের সিদ্ধান্তের কথা জানান। জ্বালানি তেলের মূল্য বাড়ানোর প্রতিবাদে গত শুক্রবার (৫ নভেম্বর) থেকে ধর্মঘট পালন করে বাস ও লঞ্চ মালিকরা।

এরপর থেকে ট্রাক ও কাভার্ডভ্যান মালিকরাও ধর্মঘটের ডাক দেন। রোববার (৭ নভেম্বর) বাস ও লঞ্চের ভাড়া বাড়ানোর পর বাস ধর্মঘট প্রত্যাহার হলেও ট্রাক ও কাভার্ডভ্যান ধর্মঘট চলমান ছিল। এই পরিস্থিতিতে ট্রাক মালিক ও শ্রমিক নেতাদের সঙ্গে বৈঠকে বসেছিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন