ই-পেপার

থার্টিফাস্ট নাইটে পর্যটক বরণে প্রস্তুত কুয়াকাটা

নিজস্ব প্রতিবেদক | আপডেট: December 28, 2021

থার্টিফাস্ট নাইটকে সামনে রেখে পর্যটন নগরী কুয়াকাটায় ব্যাপক পর্যটকের আগমন ঘটবে বলে আবাসিক হোটেল মোটেল সূত্রে জানা গেছে। ইতেমেধ্যে আবাসিক হোটেল মোটেল গুলোতে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় না করতে পারে সেজন্য রুমের মুল্য তালিকা টানানোর নির্দেশ দিয়েছেন বীচ ম্যানেজমেন্ট কমিটির সভাপতি পটুয়াখালী জেলা প্রশাসক।

কক্সবাজারের মত কুয়াকাটায় যেন কোন অপ্রতিকর ঘটনা না ঘটে এজন্য বিশেষ নজরদারী থাকবে প্রশাসনের তরফ থেকে। পর্যটন পুলিশ, থানা পুলিশ এবং গোয়েন্দা পুলিশ আগে থেকেই অসংখ্য পর্যটকদের আগমন মাথায় রেখে আগাম প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছেন বলে জানা গেছে।

হোটেল মোটেল ব্যবসায়িদের সুত্রে জানা গেছে, থার্টিফাস্ট নাইটে স্থানীয়ভাবে কোন আয়োজন না থাকলেও সিকদার রিসোর্ট এন্ড ভিলাস সহ কয়েকটি অভিজাত আবাসিক হোটেল কর্তৃপক্ষ পর্যটকদের বাড়তি বিনোদনের জন্য ইনডোরে ডিজে পার্টি,কনসার্ট, ফানুস উৎসব ও খাবারের উপর বিশেষ প্রনোদণা প্যাকেজ ঘোষনা করেছে।

নতুন বছরে সমুদ্র সৈকতে বেড়ানোর লক্ষ্য নিয়ে অগ্রিম বুকিং দিয়ে রেখেছেন অনেক পর্যটকরা। ইতোমধ্যে প্রথম শ্রেনীর আবাসিক হোটেল মোটেল ও রিসোর্ট গুলোর অধিকাংশ রুমই অগ্রিম বুকিং হয়ে গেছে।

ট্যুরিজাম ব্যবসায়িরা জানান, পায়রা সেতু উন্মুক্ত হওয়ার পর থেকেই কুয়াকাটায় পর্যটকদের ব্যাপক চাপ রয়েছে। কক্সবাজারে ঘটনায় কোন প্রভাব পরেনি কুয়াকাটায়। এবছর থার্টিফাস্ট নাইট উপলক্ষে ব্যাপক সমাগম ঘটবে বলে সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়িরা জানিয়েছেন।

সিকদার রিসোর্ট এন্ড ভিলাস’র জেনারেল ম্যানেজার মো.আল আমিন বলেন, থার্টিফাস্ট নাইটে পর্যটকদের জন্য রয়েছে বিশেষ প্রনোদণা অফার। ১২’শ টাকার টিকিটে ৩০-৩৫ আইটেমের গালা ডিনার। এর সাথে উপভোগ করতে পারবেন লাইভ কনসার্ট, ডিজে পার্টি ও ফানুস উৎসব। এ উপলক্ষ্যে তাদের রিসোর্টের ৬০ ভাগ রুম অগ্রিম বুকিং হয়ে গেছে। দুই তিন দিনের মধ্যে বাকি ভিলাও বুকিং হয়ে যাবে বলে এমনটাই তিনি জানিয়েছেন।

কুয়াকাটা আবাসিক হোটেল মালিক সমিতির সভাপতি মো.শাহ আলম হাওলাদার জানান,তাদের সমিতির আওতাভূক্ত আবাসিক হোটেলের সকল রুমই অগ্রিম বুকিং হয়ে গেছে। তবে কোন হোটেল মালিক যেন পর্যটকের ভীড়কে পুঁজি করে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় না করতে পারে এজন্য সাবক্ষনিক তদারকি করা হবে বলে তিনি নিশ্চিত করেছেন।

ট্যুরিস্ট পুলিশ কুয়াকাটা জোনের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার আব্দুল খালেক বলেন, ইংরেজি নতুন বছরে অসংখ্য পর্যটকের আগমনকে ঘিরে বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েনসহ সাদা পোশাকে গোয়েন্দা নজরদারীতে থাকবে। এছাড়া দর্শনীয় স্পটগুলোতে নিরাপত্তা জোরদার করা হবে।

কুয়াকাটা বীচ ম্যানেজমেন্ট কমিটির সদস্য সচিব ও কলাপাড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবু হাসনাত মোহাম্মাদ শহিদুল হক বলেন, আবাসিক হোটেল মোটেল গুলোতে যাতে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় না করতে পারে এজন্য ভাড়ার মুল্য তালিকা টানিয়ে রাখার জন্য নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন