ই-পেপার

ক্যান্সার হাসপাতালের ভিত্তিপ্রস্তর উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক | আপডেট: January 9, 2022

দীর্ঘ প্রতীক্ষার অবসান ঘটিয়ে বরিশালে ৪৬০ শয্যা বিশিষ্ট সমন্বিত ক্যান্সার, কিডনি ও হৃদরোড ইউনিটের ভিত্তিপ্রস্তর উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। রোববার সকালে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে তিনি এ উন্নয়নমূলক কার্যক্রমের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন ঘোষণা করেন।

এসময় উদ্বোধনী অনুষ্ঠান বরিশাল প্রান্তে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক শামীম- এমপি, বরিশাল-৪ আসনের সংসদ সদস্য পংকজ নাথ, বরিশাল-২ আসনের সংসদ সদস্য শাহে আলম, বরিশাল-৬ আসনের সংসদ সদস্য নাসলিন জাহান রতনা, সংরক্ষিত নারী সংসদ সদস্য রুবিনা আক্তার মিরা, বরিশাল সিটি মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ, বিভাগীয় কমিশনার আমিন উল আহসান, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মইদুল ইসলাম,

বরিশাল জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক তালুকদার মো. ইউনুস, মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি একেএম জাহাঙ্গীর, বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. মো. হুমায়ুন শাহীন খান, শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ডা. এইচ.এম সাইফুল ইসলাম সহ বরিশাল রেঞ্জ, মেট্রোপলিটন পুলিশ, জেলা পুলিশ, র‌্যাব-৮ এর অধিনায়কসহ সরকারের বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা এবং প্রতিনিধিগণ উপস্থিত ছিলেন। বরিশাল প্রান্তে উদ্বোধনী অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন বরিশাল জেলা প্রশাসক জসীম উদ্দীন হায়দার।

জানা গেছে, বরিশালের বিপুল সংখ্যক রোগীর চিকিৎসার্থে ২০১৯ সালের ১৭ সেপ্টেম্বর জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ১০০ শয্যা বিশিষ্ট পূর্ণাঙ্গ ক্যান্সার চিকিৎসা কেন্দ্র স্থাপনের অনুমোদন দেওয়া হয়।

পরবর্তী ২০২০ সালের ২৯ জুলাই পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে দরপত্র আহ্বান করে গণপূর্ত বিভাগ। ওই বছরের নভেম্বর মাসে মেডিকেল কলেজের চতুর্থ শ্রেণির স্টাফ কোয়ার্টারের পাশে পরিত্যাক্ত ডোবা এবং পুকুরের অর্ধেকাংশ ভরাট করে ক্যান্সার হাসপাতাল নির্মাণ কাজ শুরু করে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান।

প্রকৌশল বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, ১৭ তলা ফাউন্ডেশনের ১৫ তলা বিশিষ্ট ক্যান্সার হাসপাতাল ভবনটির জন্য প্রায় ৯৯ কোটি টাকা ব্যয় নির্ধারণ করা হয়েছে। আর গোটা প্রজেক্টটি ক্যান্সার হাসপাতালের নামে হলেও ১৫ তলার মধ্যে ছয় তলা পর্যন্ত ক্যান্সার হাসপাতালের জন্য নির্ধারিত থাকবে।
অপরদিকে বাকি তলাগুলো কার্ডিওলোজি, নেফ্রোলজি এবং বার্ন ইউনিটসহ আরও বেশ কয়েকটি বিভাগের জন্য নির্ধারণ করা হয়েছে। রয়েছে ২ তলা বিশিষ্ট বেজমেন্ট। পুরো প্রকল্পের জন্য বরাদ্দ করা হয়েছিল মোট ৩ একর জমি।

হাসপাতালটির আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরুর পর বরিশালসহ দক্ষিণাঞ্চলের মানুষের উন্নত চিকিৎসা বরিশালেই করা যাবে। কমবে বৈদেশিক নির্ভরতাও। এমনটাই জানিয়েছেন বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ডা. এইচ.এম সাইফুল ইসলাম।

উল্লেখ্য, বরিশালসহ দেশের ৮টি বিভাগীয় শহরে সমন্বিত ক্যান্সার, কিডনি ও হৃদরোড ইউনিটের ভিত্তিপ্রস্তর উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন