ই-পেপার

কোস্টগার্ড সোর্সের বিরুদ্ধে মিথ্যা তথ্য দিয়ে ফাঁসানোর অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক | আপডেট: November 24, 2021

বরগুনার পাথরঘাটায় কোস্টগার্ডের সোর্সোর বিরুদ্ধে মানববন্ধন ও সংবাদ সম্মেলন করেছে উপজেলার কালমেঘা ইউনিয়নের শত শত মানুষ। রুবেল হোসেন নামে এক মোটরসাইকেল চালককে মাদক দিয়ে হয়রানির অভিযোগ করা হয় এই কর্মসূচিতে। বুধবার বেলা এগারোটায় কালমেঘা ইউনিয়নের মধ্য কালমেঘা গ্রামে এই প্রতিবাদ কর্মসূচির আয়োজন করা হয়। মানববন্ধনে বীর মুক্তিযোদ্ধা, শিক্ষক, ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা অংশগ্রহণ করেন। রুবেল হোসেনের একই এলাকার দিনমজুর গোলাম সারোয়ারের ছেলে।

মানববন্ধন ও সাংবাদিক সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা মজিবুর রহমান শরীফ, প্রবীণ শিক্ষক এমদাদ আলী আকন, ইউপি সদস্য নাজমা বেগম, সাবেক মেম্বার মিজানুর রহমান, সাবেক মেম্বার মকিম সিকদারসহ প্রায় দুই শতাধিক এলাকাবাসী।

তারা দাবি করেন, রুবেল একজন নিরিহ মানুষ, সে মোটরসাইকেল ভাড়ায় চালায়। তাকে গত ১৬ নভেম্বর কোস্টগার্ডের সোর্স নিজেদের ফায়দা হাসিল করার জন্য ২শ পিচ ইয়াবাসহ রুবেলকে আটক করে, যা সম্পূর্ণ মিথ্যা। এলাকাবাসী দাবি করেন, কোস্টগার্ড তাদের মাঝি ও সোর্সদের দেয়া তথ্য অনুযায়ী হয়রানী অভিযানের নামে এলাকার নিরিহ মানুষকে মাদক দিয়ে আটক করে।

রুবেল দীর্ঘদিন জেল হাজতে থাকায় পরিবার খুব কস্টে মানোবেতর জীবনযাপন করছে। এর আগেও বছর খানেক আগে একই ইউনিয়নের মহসিন মিয়ার ছেলে রিয়াজকে অস্ত্র দিয়া ফাঁসিয়ে তার বিরুদ্ধে মামলা দিয়েছে রিয়াজ এখনো জেল খাটছে। তখনও কোস্টগার্ডের সোর্সদের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করা হয়েছিল। তাদের অভিযোগ, কোস্টগার্ডের সোর্সরা এককালীন জলদস্যুতার সাথে জড়িত ছিল এবং এর মধ্যে কেউ কেউ মাদক ব্যবসার সাথেও জড়িত ছিল।

স্থানীয় সাবেক মেম্বর মিজানুর রহমান বলেন, কোস্টগার্ড সাগরে জলদস্যুদের হাত থেকে জেলেদের রক্ষা না করে উপকূলীয় এলাকার সাধারণ মানুষকে ষড়যন্ত্রমূলকভাবে ফাঁসাচ্ছে। এ থেকে পরিত্রাণের জন্য ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেন এলাকাবাসী।

রুবেলের স্ত্রী রোজিনা বেগম বলেন, আমার বৃদ্ধ শ্বশুর-শাশুড়ি এবং আমার সন্তানদের একমাত্র আয়ের উৎস আমার স্বামী। তাকে মিথ্যা মামলা দিয়ে আমাদের পথে বসিয়েছে। আমি আমার স্বামীর মুক্তিসহ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত করে ষড়যন্ত্রকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করছি।

এ বিষয়ে দক্ষিণ জোন কোস্টগার্ডের পাথরঘাটা স্টেশন কমান্ডার লেফটেন্যান্ট ফাহিম শাহরিয়ার জানান, আমরা জলদস্যু দমনের পাশাপাশি মাদক ও অপরাধ নির্মূলে কাজ করে যাচ্ছি। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে রুবেল কে আটক করেছি এবং তার কাছ থেকে ২’শ পিস ইয়াবা উদ্ধার করেছি। তিনি আরো জানান, কোস্টগার্ড বিশ্বস্ত সোর্স ব্যবহার করে তাদের অভিযানগুলো পরিচালনা করেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে পাথরঘাটা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি আবুল বাশার জানান, লোকমুখে জানতে পেরেছি প্রতিপক্ষরা রুবেলকে ফাঁসিয়েছে। পুলিশ তদন্তে আসল ঘটনা বেরিয়ে আসবে বলে জানান তিনি।

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন