ই-পেপার

অভিযান ট্র্যাজেডি: মহসিনের নেতৃত্বে ১১০ দগ্ধকে নেওয়া হয় হাসপাতালে

নিজস্ব প্রতিবেদক | আপডেট: December 28, 2021

ঢাকা থেকে বরগুনাগামী এমভি অভিযান-১০ লঞ্চে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় দগ্ধদের অ্যাম্বুলেন্সে করে বিভিন্ন হাসপাতালে পৌঁছে দিয়েছেন বরিশাল বিভাগীয় অ্যাম্বুলেন্স চালক সমিতির সভাপতি ও ঝালকাঠি সদর হাসপাতালে অ্যাম্বুলেন্স চালক মহসিন খান।

লঞ্চ দুর্ঘটনার খবর পেয়েই অ্যাম্বুলেন্স নিয়ে ছুটে গিয়েছেন তিনি। তারই অ্যাম্বুলেন্সে করে অগ্নিদগ্ধদের পৌঁছে দিয়েছেন হাসপাতালে। তিনি এ সেবামূলক কাজটি করেছেন সম্পূর্ণ ফ্রিতে। তিনি বরিশাল, রাজাপুর, কাউখালীসহ বিভিন্ন স্থানের ১৪টি অ্যাম্বুলেন্সকে ফোন দিয়ে আনেন এবং অগ্নিদগ্ধদের পৌঁছে দেন হাসপাতালে।

এ বিষয়ে মহসিন খান জানান, আমি যখন খবর পেয়েছি তখন ছুটে যাই। দেখি আমার একার পক্ষে এত লোক সামাল দেওয়া সম্ভব না, তখন আমি বরিশাল, রাজাপুর ও কাউখালী থেকে অ্যাম্বুলেন্স খবর দিয়ে এখানে এনেছি। আমরা ১৪টি অ্যাম্বুলেন্সে করে ১১০ জন অগ্নিদগ্ধকে হাসপাতালে পৌঁছে দিয়েছি। আমরা এ কাজটি করেছি সম্পূর্ণ বিনামূল্যে।

ডা. জহিরুল ইসলাম বাদল নামে এক ব্যক্তি জানান, লঞ্চ দুর্ঘটনায় যেমন মানবিক বিপর্যয় ঘটিয়েছে। আবার মানবিকতার অনন্য উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত করেছেন ঝালকাঠির সদর হাসপাতালের অ্যাম্বুলেন্স চালক মহসিন খান। তিনি ওই দিন রাত থেকে অনেক পরিশ্রম করেছেন এবং বিভিন্ন স্থান থেকে অ্যাম্বুলেন্স খবর দিয়ে আনেন।

প্রসঙ্গত, ২৩ ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার রাত ৩টার দিকে ঢাকা থেকে বরগুনাগামী এমভি অভিযান-১০ নামের লঞ্চে আগুন লাগে। এতে এখন পর্যন্ত ৪১ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। নিখোঁজ ৫১ জনের তালিকা দিয়েছে রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি।

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন